Bangal Press
ঢাকাSunday , 4 February 2024
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. এক্সক্লুসিভ
  5. ক্যাম্পাস
  6. খেলাধুলা
  7. চাকরির খবর
  8. জাতীয়
  9. তথ্যপ্রযুক্তি
  10. বিনোদন
  11. ভ্রমণ
  12. মতামত
  13. রাজনীতি
  14. লাইফস্টাইল
  15. শিক্ষা জগৎ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মাকে দোকানে বসিয়ে রেখে হাওয়া ছেলে, কাতার থেকে বিকাশে এলো ৫০ হাজার

ডেস্ক রিপোর্ট
February 4, 2024 10:02 am
Link Copied!

নীলফামারীর সৈয়দপুরে হুমায়ুন কবির ওরফে বাবু (২২) নামে অনলাইন জুয়ায় (থাই জুয়া) আসক্ত বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া এক শিক্ষার্থী নিজেকে অপহরণের নাটক সাজিয়ে প্রবাসী বাবার কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।
বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে সৈয়দপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কল্লোল কুমার দত্ত এ তথ্য জানান।
জানা গেছে, উপজেলার কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়নের হুগলীপাড়া এ চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটনা ঘটেছে। হুমায়ুন কবির ওরফে বাবু রংপুর কারমাইকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদবিদ্যা বিষয়ের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী।
এদিকে, সাজানো অপহরণের ঘটনার আট দিন পর গত ৩০ জানুয়ারি সৈয়দপুর থানা পুলিশ ঘটনার মূলহোতা বাবুকে তার বাড়ি থেকে উদ্ধার করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী কর্তৃক সাজানো অপহরণের ঘটনার বিষয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে সৈয়দপুর থানা পুলিশ এক প্রেস ব্রিফিংয়ের আয়োজন করে।  এতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কল্লোল কুমার দত্ত সাজানো অপহরণ ঘটনা ও উদ্ধার সম্পর্কে সাংবাদিকদের বিফ্রিং করেন।  এ সময় সৈয়দপুর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শাহা আলম, অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) এস এম রাসেল পারভেজ উপস্থিত ছিলেন।
পুলিশের প্রেস বিফ্রিংয়ে জানানো হয়, সৈয়দপুর উপজেলার কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়নের হুগলীপাড়ার তহিদুল ইসলাম ও হামিদা বেগম দম্পতির দুই মেয়ে এবং এক ছেলে সন্তান রয়েছে। এদের মধ্যে হুমায়ুন করিব বাবু সবার ছোট। প্রায় চার বছর আগে হুমায়ুর কবির বাবু’র বাবার সঙ্গে তার মায়ের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। তার মা হামিদা বেগম প্রায় দুই বছর আগে দ্বিতীয় বিয়ে করে স্বামীর সঙ্গে ঢাকার আশুলিয়ায় বসবাস করেন। আর বাবুর বাবা তহিদুল ইসলাম কাতার প্রবাসী। তিনি প্রায় ১৫-১৬ বছর যাবত কাতারে থাকেন। বাবুর বড় দুই বোনের বিয়ে হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া বাবু সৎ মায়ের সঙ্গে বাবার বাড়িতে থাকেন। বেশ কিছু দিন ধরে অনলাইন জুয়া আসক্ত হয়ে পড়ে সে। এতে অনেক ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়ে বাবু। ঋণ থেকে মুক্তি পেতে সে নিজেকে নিয়ে একটি অপহরণ নাটক সাজানোর ফন্দি করে। ঘটনার দিন গত ২৩ জানুয়ারি সে তার সৎ মা স্বপ্না বেগম এবং চাচি মালেকা বেগমকে নিয়ে কেনাকাটার করার উদ্দেশ্যে সৈয়দপুর প্লাজা মার্কেটে যায়। এরপর সে সেখানে তাদের বসিয়ে রেখে গা ঢাকা দেয়।
বাবু স্বীকারোক্তির বরাত দিয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জানান, হুমায়ুন কবির বাবু সৎ মা ও চাচিকে সৈয়দপুর প্লাজায় বসিয়ে রেখে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা করে নীলফামারীতে চলে যান। সেখানে রেলওয়ে স্টেশনে হাবিুবর রহমান (৩০) নামে এক জনের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। এরপর তাকে সে তার অপহরণ পরিকল্পনার কথা খুলে বলে। সেখানে তাদের মধ্যে কথাবার্তা হয় অপহরণ নাটক সাজিয়ে যে টাকা পয়সা আসবে তারা দু’জনে সমানভাগে ভাগ করে নেবে। যেই কথা সেই কাজ। এরপর হাবিবুব শিক্ষার্থী হুমায়ুন কবির বাবুকে তার নীলফামারী সদরের চাঁদের হাট এলাকার বাড়িতে নিয়ে যান। বাড়িতে তাকে বন্ধু হিসেবে পরিচয় নিয়ে থাকার ব্যবস্থা করেন। পরবর্তীতে হুমায়ুন কবির বাবু তার কাতার প্রবাসী বাবাকে ইমুতে কল করে জানায় তাকে অপহরণ করা হয়েছে। দেড় লাখ টাকা মুক্তিপণ দিলে তাকে ছেড়ে দেবে অপহরণকারীরা। এতে বাবার বিশ্বাসযোগ্যতা অর্জনে জন্য স্থানীয় একটি স্কুল ঘরের মধ্যে বাবু নিজের হাত পা বেঁধে বাবার কাছে ইমুতে দেখান। এতে বাবুর বাবা ঘটনার বিষয়ে বিশ্বাস আসে। এদিকে, বাবু মা হামিদা বেগম প্রথমে ছেলে নিখোঁজের বিষয়ে থানায় একটি জিডি করেন। পরবর্তীতে বাবুর বাবার কাছ থেকে তাকে অপহরণের বিষয়ে জানতে পেরে একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন।
এদিকে, বাবুর বাবা তার আদরের ছেলেকে পেতে অপহরণকারীদের চাহিদা মধ্যে ৫০ হাজার টাকা বিকাশে পাঠিয়ে দেন। অন্যদিকে, থানায় মামলা দায়ের পর থেকে সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) এস এম রাসেল পারভেজ তার পুলিশ অফিসারকে নিয়ে ঘটনাটি তদন্তে নামেন। পরবর্তীতে পুলিশি তদন্ত ও তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে নিশ্চিত হয় যে, বাবুর বাবার পাঠানো টাকা নীলফামারীতে ক্যাশআউট করা হয়েছে। এরপর পুলিশ তাকে উদ্ধারে ব্যাপক তদন্তে নামেন। আর পুলিশি তৎপরতা বিষয়টি আঁচ করতে পেরে অপহরণ নাটকের মূলহোতা হুমায়ুন কবির বাবু গত ৩০ জানুয়ারি  অসুস্থতার ভান করে একটি অটোরিকশা করে নিজ বাড়িতে পৌঁছেন।
বুধবার (৩১ জানুয়ারি) সৈয়দপুর থানা পুলিশ হুমায়ুন কবিরের বাড়িতে ফিরে আসার খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। পরবর্তীতে পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদের সে নিজে নিজে অপহরণ নাটক সাজানোর ঘটনাটি স্বীকার করেন।
সৈয়দপুর থানা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহা আলম জানান, বৃহস্পতিবার ঘটনার বিষয়ে হুমায়ুন কবির বাবু’র ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবাববন্দির জন্য তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।



বাঁধন/সিইচা/সাএ

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো। বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।