Bangal Press
ঢাকাTuesday , 6 February 2024
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. এক্সক্লুসিভ
  5. ক্যাম্পাস
  6. খেলাধুলা
  7. চাকরির খবর
  8. জাতীয়
  9. তথ্যপ্রযুক্তি
  10. বিনোদন
  11. ভ্রমণ
  12. মতামত
  13. রাজনীতি
  14. লাইফস্টাইল
  15. শিক্ষা জগৎ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ভারতে আটকে পড়া ১২ বাংলাদেশি ফিরলেন আখাউড়া সীমান্ত দিয়ে 

Link Copied!

বাংলাদেশ থেকে ভারতে গিয়ে আটকে পড়া ১২ বাংলাদেশি আজ দেশে ফিরেছেন। তারা ভারতে পাচারের শিকার হয়েছিলেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের আগরতলা থেকে বাংলাদেশের আখাউড়া সীমান্ত চেকপোস্ট দিয়ে মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে তিনটায় তারা বাংলাদেশে প্রবেশ করেন। আগরতলার বাংলাদেশ সহকারী হাইকমিশনের মাধ্যমে তাদেরকে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। 
দেশে ফেরত আসা বাংলাদেশি নাগরিকেরা হলেন সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার জবা রানী রায় ও তার ছেলে জগদীশ রায়, নেত্রকোনার পূর্বধলার মোসাঃ বিউটি, চাঁদপুরের নিশ্চিন্তপুরের রিয়াহ হোসেন, যশোরের অভয়নগরের মোসাঃ বিনা বেগম ও মোঃ শেখ সাদী, নওগাঁর আত্রাই উপজেলার শাহিনা বেগম, জামালপুরের মেলান্দহের দুই ভাই মোঃ শামিম মিয়া ও মোঃ সুহান মিয়া, জামালপুরের ইসলামপুর থানার মোঃ ফারুখ হোসেন ও আসমা বেগম এবং ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার তৃষ্ণা অধিকারী তিশা। সাজা শেষে তিশা আগড় তলার জওহরলাল নেহেরু বালিকা নিবাসে এবং বাকিরা নরসিংগড় ডিটেনশন সেন্টারে অবস্থান করছিলেন। 
পরিবার ও সহকারী হাই-কমিশনের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এই ১২ বাংলাদেশি, ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে বিভিন্ন সময়ে আটক হয়েছিলেন। এরপর সেদেশের আদালতের নির্দেশে তারা সাজা ভোগ করেন। সাজা শেষে তাঁদের নাগরিকত্ব যাচাই করা হয়। এরপর বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্র ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী ভারতে যোগাযোগ করে তাদেরকে দেশে ফিরিয়ে আনার জন্যে সেদেশের সরকারের অনাপত্তি সংগ্রহ করে আগরতলার সহকারী হাইকমিশন।
আখাউড়া স্থলবন্দরে তাদেরকে ভারত থেকে গ্রহণ করার সময় ভারতের ত্রিপুরায় নিযুক্ত বাংলাদেশের সহকারী হাইকমিশনার আরিফ মোহাম্মদ, বাংলাদেশ সহকারী হাইকমিশনের প্রথম সচিব মো. আল আমীন, আখাউড়ার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাবেয়া আক্তার, আখাউড়া থানার ওসি মোহাম্মদ নুরে আলম উপস্থিত ছিলেন,ইমিগ্রেশন ওসি হাসান আহমেদ ভূঁইয়া।
ত্রিপুরায় নিযুক্ত সহকারী হাইকমিশনার আরিফ মোহাম্মদ সাংবাদিকদের বলেন, “আজকে আমাদের জন্য খুবই আনন্দের দিন যে আমরা ১২ জন বাংলাদেশিকে প্রত্যাবাসন করতে পারছি। ভবিষ্যতে এ ধরনের মানবপাচার ও অবৈধ অনুপ্রবেশ ঠেকাতে জনসচেতনতা আরও জোরদার করতে হবে।” ফেরত আসা এই বাংলাদেশিদের পাশে থাকার জন্য আখাউড়ার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব রাবেয়া আক্তার ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামকে ধন্যবাদ জানান। ফেরত আসা জবা রানী রায় ও জগদীশ রায়ের পরিবারের সদস্যরা জানান, প্রায় দেড় বছর আগে দালালের মাধ্যমে তারা ডাক্তার দেখানোর উদ্দেশ্যে ভারতে যান। বৈধ কাগজপত্র না থাকায় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে ধরা পরেন এবং সাজা ভোগ করেন। পরবর্তীতে তাঁদের নাগরিকত্ব যাচাই করে দেশে ফেরার প্রক্রিয়া শুরু হয়।



শাকিল/সাএ

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো। বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।