Bangal Press
ঢাকাWednesday , 7 February 2024
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. এক্সক্লুসিভ
  5. ক্যাম্পাস
  6. খেলাধুলা
  7. চাকরির খবর
  8. জাতীয়
  9. তথ্যপ্রযুক্তি
  10. বিনোদন
  11. ভ্রমণ
  12. মতামত
  13. রাজনীতি
  14. লাইফস্টাইল
  15. শিক্ষা জগৎ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

জয়পুরহাটে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি সুজন গ্রেপ্তার

Link Copied!

জয়পুরহাট সদর উপজেলার ভাদসা এলাকা থেকে যৌথভাবে অভিযান চালিয়ে চাঞ্চল্যকর স্কুলছাত্র মোয়াজ্জেম হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি সুজনকে গ্রেপ্তার  করেছে র‌্যাব-০৫ এবং র‍্যাব-১০।  
র‌্যাব সূত্র জানায়, গ্রেপ্তার হওয়া মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি হচ্ছে বাইতুল হোসেন সুজন (৩৭)। সে জয়পুরহাট শহরের দেবীপুর মন্ডলপাড়া মহল্লার রফিকুল ইসলামের ছেলে। মামলার বরাত দিয়ে র‌্যাব আরও জানায়, ২০০২ সালে ২৮ জুন জয়পুরহাট সদর এলাকার পাঁচুরচক প্রামানিক পাড়ার ফজলুর রহমানের ছেলে ৯ম শ্রেণীর ছাত্র মোয়াজ্জেম হোসেন কে তুলে নিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় মৃত মোয়াজ্জেম হোসেনের পিতা বাদী হয়ে জয়পুরহাট থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।  
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ২০০৩ সালে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। দীর্ঘ শুনানি শেষে জয়পুরহাট জেলার অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালত-২ এর বিচারক মোঃ আব্বাস উদ্দিন অভিযুক্ত ১১ জনের প্রত্যেক আসামিকে মৃত্যুদণ্ডসহ ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা প্রদান করেন। মামলার রায় ঘোষণার সময় ১১ আসামীর ৬ জন অনুপস্থিত ছিলেন। মামলার রায় হওয়ার পর থেকেই র‌্যাব-৫ এবং র‌্যাব-১০ এর গোয়েন্দা দল মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি সুজন কে গ্রেপ্তারের জন্য গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার রাত ৯ টার সময় জয়পুরহাটের ভাদসা এলাকা থেকে সুজন কে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। গ্রেপ্তারকৃত আসামি সুজনকে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে জয়পুরহাট সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানায় র‌্যাব। 
অপরদিকে, অতিরিক্ত  দায়রা জজ আদালত-২  মোঃ আব্বাস উদ্দিনের শহরের হাউজবিল্ডিং এলাকার ভাড়া বাসায় মঙ্গলবার রাত ৩ টায় গ্রিল কেটে ভেতরে প্রবেশ করে একদল দুষ্কৃতকারী হত্যার হুমকিসহ স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকা চুরির অভিযোগে জয়পুরহাট থানায় একটি এজাহার দায়ের করেছেন বিচারক নিজেই। মঙ্গলবার সন্ধ্যার পরে মামলাটি দায়ের করা হয়। গত ৩১ জানুয়ারি জয়পুরহাটের স্কুল ছাত্র মোয়াজ্জেম হোসেন হত্যা মামলায় জেলার এক সময়ের শীর্ষ সন্ত্রাসী বেদারুল ইসলাম বেদীন সহ ১১ জনকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন। ওই মামলায় ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক থাকা বেদীনসহ ছয় আসামীর লোকজন এমন ঘটনা ঘটতে পারে বলে এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে। 
এ ঘটনা জানার পর জয়পুরহাটের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ নূরে আলম ও জয়পুরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ন কবির ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।  
এ ব্যাপারে পুলিশ সুপার কোন মন্তব্য না করলেও ওসি হুমায়ন কবির সাংবাদিকদের জানান, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করার পর বিষয়টি অনেকটা রহস্যজনক মনে হলেও আমরা গভীর ভাবে ঘটনাটি তদন্ত করছি। আমরা দ্রুত ওই ঘটনার রহস্য উদ্‌ঘাটন করার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেন তিনি। 
 
 



শাকিল/সাএ

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো। বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।