Bangal Press
ঢাকাSunday , 26 May 2024
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. এক্সক্লুসিভ
  5. ক্যাম্পাস
  6. খেলাধুলা
  7. চাকরির খবর
  8. জাতীয়
  9. তথ্যপ্রযুক্তি
  10. বিনোদন
  11. ভ্রমণ
  12. মতামত
  13. রাজনীতি
  14. লাইফস্টাইল
  15. শিক্ষা জগৎ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

‘নো হেলমেট, নো ফুয়েল’ খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশের ব্যতিক্রমী কার্যক্রম

Link Copied!

খাগড়াছড়িতে সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে মোটরসাইকেল চালক ও আরোহীর হেলমেট পরা নিশ্চতের পাশাপাশি জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে পেট্রোল পাম্পে “No Helmet, No Fuel”  কার্যক্রম চালু সহ বিশেষ প্রচারণা অভিযান চালানো হয়েছে।
রবিবার (২৬ মে) দুপুর ২ ঘটিকায় খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশের উদ্যোগে জেলা শহরের কে. সি ফিলিং স্টেশনে “No Helmet, No Fuel” কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করেন খাগড়াছড়ি জেলার পুলিশ সুপার জনাব মুক্তা ধর পিপিএম (বার)।
পরে পেট্রোল পাম্পগুলোতে জেলা পুলিশের উদ্যোগে জনসচেতনতামূলক লিফলেট ও স্টিকার সাঁটানো সহ পাম্প কর্তৃপক্ষকে হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেল চালকদের জ্বালানি না দিতে কঠোর নির্দেশনা প্রদান করা হয়। পরবর্তীতে সেখানে বিশেষ প্রচারণা অভিযান পরিচালনা করা হয়।
অভিযানকালে পুলিশ সুপার নিজে হেলমেট বিহীন মোটরসাইকেল চালকদের মাঝে জনসচেতনা সৃষ্টির অংশ হিসেবে লিফলেট বিতরণ ও মোটরসাইকেলে স্টিকার সাঁটানো সহ হেলমেট বিহীন চালকদের সতর্ক ও হেলমেট পড়া চালকদের শুভেচ্ছা জানিয়ে চালকদের নিজের সেফটি নিশ্চিত করে ট্রাফিক আইন মেনে চলার আহ্বান জানান। 
পুলিশ সুপার মুক্তা ধর সাংবাদিকদের জানান, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ আইন, ২০১৭ এর ধারা ১০ এর অধীন গঠিত উপদেষ্টা পরিষদ সভার সিদ্ধান্ত অনুয়ায়ী মোটরসাইকেল চালক এবং তার সহযাত্রীকে আবশ্যিকভাবে বিএসটিআই কর্তৃক নির্ধারিত মানের হেলমেট পরিধান করতে হবে। কোন মোটরসাইকেল চালক ও সহযাত্রী হেলমেট ব্যবহার না করলে উক্ত মোটরসাইকেলে কোন প্রকার জ্বালানি সরবরাহ করা যাবে না। এই প্রেক্ষিতে সড়ক পরিবহন আইন, ২০১৮ এর ধারা ১২৪ এর ক্ষমতাবলে মোটরসাইকেলের চালক ও সহযাত্রীদের জন্য ‘নো হেলমেট, নো ফুয়েল’ নির্দেশনা জারি করা হয়।
মোটরসাইকেলের চালক/রিফুয়েলিং স্টেশনের মালিকগণ এই নির্দেশনা অনুসরণ করবেন। অন্যথায় আইন প্রয়োগকারী সংস্থা কর্তৃক সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে সড়ক পরিবহন আইন, ২০১৮ এর ৯২(১) ধারা অনুযায়ী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
পুলিশ সুপার আরো বলেন, প্রতিদিন সড়ক-মহাসড়কে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় যত মানুষ প্রাণ হারাচ্ছেন, তাদের অধিকাংশ হেলমেট ব্যতিত মোটরসাইকেল চালনা করার কারণে নিহত হয়েছে। মোটরসাইকেল চালকদের মাঝে শতভাগ হেলমেট পরিধান নিশ্চিত করা গেলে এই প্রাণহানি অনেকাংশ কমিয়ে আনা সম্ভব। চলতি বছরে বেশ কয়টি মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহীরা মাথায় গুরুতর আঘাতে মারা গেছে।  ওইসব মোটরসাইলে আরোহীদের হেলমেট ব্যবহার থাকলে এ ধরনের ক্ষতি নাও হতে পারতো।
তাই সড়ক দুর্ঘটনারোধে সচেতনতা জরুরি উল্লেখ করে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে “No Helmet, No Fuel” কার্যক্রম বাস্তবায়নে সচেতনতামূলক প্রচারণা চালাবে। পাশাপাশি ট্রাফিক আইন লঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
তিনি আরও জানান, সড়কে নিরাপত্তা নিশ্চিত করণে দায়িত্বশীল কর্তৃপক্ষের পাশাপাশি নাগরিকদের সচেতনতার কোন বিকল্প নেই বলে উল্লেখ করেন। তাই অনাকাঙ্খিত দূর্ঘটনারোধে নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করতে এবার “No Helmet, No Fuel” কার্যক্রম চালু করা হচ্ছে। সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে জেলার প্রতিটি পেট্রোল পাম্পে গাড়ি ছাড়া বোতল বা ড্রামে পেট্রোল-অকটেন বিক্রি না করতে পেট্রোল পাম্প মালিক ও খুচরা পেট্রোল ব্যবসায়ীদের আহবান জানান। এই কর্মসূচি বাস্তবায়নে প্রতিটি পাম্পে সচেতনতামূলক ব্যানার টানানোর আহ্বান করেন। 
এসময় খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ এবং বিভিন্ন পদমর্যাদার পুলিশ সদস্যগণসহ জেলা পেট্রোল পাম্প মালিক সমিতি’র নেতৃবৃন্দ এবং বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। 
উল্লেখ্য, ২০/০৫/২৪ খ্রি. বাংলাদেশ সড়ক পরিবহনের প্রজ্ঞাপন ও পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের নির্দেশনা মোতাবেক সড়কে চলাচল নিরাপদ করার লক্ষ্যে ‘নো হেলমেট, নো ফুয়েল’ কার্যক্রম বাস্তবায়নের পদক্ষেপ হিসেবে জেলা পুলিশের এই কার্যক্রম।



সালাউদ্দিন/সাএ

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো। বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।